Full width home advertisement

Post Page Advertisement [Top]

whatsapp-tips-tricks

হোয়াটসঅ্যাপ টিপস-এন্ড-ট্রিকস

মেসেজ আদান প্রদানের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং নির্ভরযোগ্য মোবাইল অ্যাপ হল হোয়াটসঅ্যাপ। হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট নেই বা মোবাইলে হোয়াটস্যাপ ইন্সটল করা নেই এমন সংখ্যা আজ নেহাতই খুব কম। নতুন নতুন নানান বৈশিষ্ট্যসম্পন্ন হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করা খুবই সহজ সরল। ধরে নিচ্ছি আপনি ও হোয়াটসঅ্যাপ এর ব্যবহার নিশ্চয়ই করে থাকেন। কিন্তু আপনি হয়তো জানেন না হোয়াটসঅ্যাপের এমন কিছু প্রয়োজনীয় টিপস এন্ড ট্রিকস এর সম্বন্ধে যা জানলে আপনার হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার এক অন্য মাত্রা পাবে। তাহলে জানা যাক এই প্রয়োজনীয় হোয়াটসঅ্যাপ টিপস-এন্ড-ট্রিকস গুলি কি।

Whatsapp 2020 দশটি প্রয়োজনীয় টিপস

এখানে আমি এমন দশটি হোয়াটসঅ্যাপ টিপস ও ট্রিকস নিয়ে আলোচনা করব যা দিয়ে আপনি হোয়াটসঅ্যাপ এর অনেক সমস্যা নিজেই সেরে ফেলবেন তাও আবার এক নিমিষেই। আর দেরি নয় চলুন জানা যাক হোয়াটসঅ্যাপের ছোটখাটো দশটি টিপস।

টিপস ১।

অনেক সময় এমন হয় যে আপনি হোয়াটসঅ্যাপে কাউকে মেসেজ পাঠাতে চান অথচ তার নাম্বার আপনার ফোনে সেভ করতে চান না। তার জন্য একটি ছোট্ট ট্রিক্স এর মাধ্যমে এই কাজ অতি সহজেই করা যায়। প্রথমে আপনাকে আপনার ফোনের ব্রাউজার যেমন ক্রোম ব্রাউজার ওপেন করতে হবে। তারপর সেখানে টাইপ করতে হবে https://wa.me/ তারপর যাকে মেসেজ করতে চান তার কান্ট্রি কোড দিন (যেমন ভারতের ক্ষেত্রে 91)। কান্ট্রি কোড এরপর তার নাম্বারটি দিয়ে দিন। ঠিক এই ভাবে https://wa.me/xyabcdefghij
এখানে x&y হলো যাকে মেসেজ পাঠাতে যাচ্ছেন তার কান্ট্রি কোড এবং abcdefghij হল তার মোবাইল নাম্বার। ধরুন আপনি যে নাম্বারে মেসেজ করতে চান সেটি হল 1234567890 এবং সেটি একটি ভারতীয় নাম্বার (91) তাই আপনাকে ক্রোম ব্রাউজারে লিখতে হবে https://wa.me/911234567890। সেই লিংকটি ওপেন বা সার্চ করলে আপনি একটি মেসেজ অপশন পাবেন সেই মেসেজ এ ক্লিক করলে আপনি সোজাসুজি পৌঁছে যাবেন আপনার হোয়াটসঅ্যাপে। এবং সেখানে আপনি অতি সহজেই সেই নাম্বারে হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ পাঠাতে পারবেন সেই নাম্বার কে আপনার কন্টাক্ট লিস্টে সেভ না করেই।

টিপস 2।

এবার যে টিপসটি নিয়ে আমি আলোচনা করব সেটা আসলে একটা মজাদার ট্রিক। যদি কখনো এমন হয় যে আপনি কোন বন্ধু বা অন্য কোন কন্টাক্ট এর হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ পড়তে চান সেটা দেখতে চান অথচ এটাও চান যে সেই কন্টাক্ট বা বন্ধু যেন বুঝতে না পারে যে আপনি তার মেসেজটি দেখেছেন বা পড়েছেন। মানে এককথায় যে মেসেজটি আপনাকে পাঠিয়েছে সে যেন ব্লু টিক দেখতে না পায়। সে ক্ষেত্রে আপনাকে একটা ছোট্ট ট্রিক প্রয়োগ করতে হবে। আপনি প্রথমে আপনার ফোনের এরোপ্লেন মোড অন করে নিন। তারপর আপনি হোয়াটসঅ্যাপে গিয়ে নির্দিষ্ট মেসেজটি ক্লিক করে পড়তে পারেন। অবশ্যই পড়া হয়ে গেলে আপনি প্রথমে হোয়াটসঅ্যাপ টি বন্ধ করবেন। খেয়াল রাখতে হবে অ্যাপটি যেন ব্যাকগ্রাউন্ডে চালু না থাকে। সেখান থেকেও অ্যাপটিকে ক্লোজ করে দিন। সবশেষে আপনি আপনার ফোনের এরোপ্লেন মোড অফ করে দিন।এভাবে আপনার বন্ধু জানতেও পাবে না যে আপনি ইতিমধ্যেই তার ম্যাসেজটি পড়ে নিয়েছেন।

টিপস ৩।

আপনি কি কখনো লক্ষ্য করেছেন আপনি মেসেজ থ্রেডের কোন মেসেজ বা ছবি ডিলিট করতে গেলে ডিলিট অপশন এর পাশে একটি স্টার অপশন থাকে। আপনি কি জানেন ওই স্টার টির আসলে কাজ কি?
আপনি হয়তো এটি কোনদিন লক্ষ্যই করেননি কিন্তু হোয়াটসঅ্যাপ ম্যাসেঞ্জারের এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ অপশন। এটি হলো starred মেসেজ। এটি দ্বারা কোন মেসেজ কে বুকমার্ক (bookmark) করা হয় ঠিক তেমনি যেমন আপনি কম্পিউটার বা মোবাইলে কোন ওয়েবসাইটকে বুকমার্ক করে থাকেন যাতে করে আপনি সহজেই এক ক্লিক এ সেই ওয়েবসাইটটি ওপেন করতে পারেন। ঠিক তেমনি কোনো মেসেজ, ছবি,  ভিডিও ইত্যাদি কে স্টার অপশনে বুকমার্ক করলে আপনি সহজেই starred message মেনু থেকে সেটি দেখতে পাবেন। লম্বা লম্বা মেসেজ থ্রেডের মধ্যে কোনো গুরুত্বপূর্ণ মেসেজ বা ছবি আর হারিয়ে যাবে না।

টিপস ৪।

আপনি যদি হোয়াটসঅ্যাপের বোরিং সাদামাটা চ্যাট ব্যাকগ্রাউন্ড কে আকর্ষণীয় করে তুলতে চান তাহলে এই টিপস টি আপনার জন্য। হোয়াটসঅ্যাপে সেটিংসে আপনি একটি চ্যাট অপশন পাবেন। চ্যাট অপশন এ ক্লিক করলে তারপর আপনি ব্যাকগ্রাউন্ড /ওয়ালপেপার অপশন পাবেন। সেখান থেকে আপনি এই সাদা বোরিং ব্যাকগ্রাউন্ড কে পাল্টে আপনার পছন্দমত সলিড কালার ব্যাকগ্রাউন্ড বা পছন্দসই কোন ছবিকে ব্যাকগ্রাউন্ড হিসেবে ব্যাবহার করতে পারবেন।

টিপস ৫।

আপনি যদি হোয়াটসঅ্যাপে প্রচুর টেক্সট মেসেজ করে থাকেন তাহলে এই টিপসের মাধ্যমে আপনি আপনার টেক্সট গুলিকে আরো স্টাইলিশ এবং সুন্দরভাবে উপস্থাপন করতে পারবেন। যেমন ধরুন আপনি যদি কোন টেক্সট কে বোল্ড ইটালিক ইত্যাদি করতে চান। তার জন্য আপনাকে শুধুমাত্র সেই টেক্সট লেখা টি পাঠানোর পূর্বে তাকে সিলেক্ট করুন। এরপর আপনি তিন ডট বিশিষ্ট মেনু দেখতে পাবেন তাতে ক্লিক করুন। এখানে আপনি বোল্ড করা ইটালিক করা স্ট্রাইক থ্রু করা আরও নানান অপশন পেয়ে যাবেন। যার মাধ্যমে আপনার লেখাগুলোকে আরো সাজিয়ে গুছিয়ে সুন্দরভাবে পরিবেশন করতে পারবেন।

টিপস ৬।

আপনার হোয়াটসঅ্যাপ মেসেঞ্জারে চ্যাট লিস্টে থাকা কন্টাক্ট বা নাম্বার (একাউন্ট) নতুন ম্যাসেজ আসার সাথে সাথে উপরে উঠে  আসতে থাকে এবং পুরনো মেসেজ সংশ্লিষ্ট কন্টাক্ট গুলি নিচে নামতে থাকে। কিন্তু আপনি যদি চান আপনার হোয়াটসঅ্যাপ টি খোলার সাথে সাথে আপনার পছন্দমত আপনার চ্যাট লিস্টের এক বা একাধিক কন্টাক্ট সব সময় উপরের সারিতে থাকুক আপনি সেটিও অনায়াসে নিমেষেই করতে পারেন। আপনাকে শুধু আপনার চ্যাট লিস্টের সেই একাউন্ট বা কন্টাক্ট টিকে ট্যাপ অ্যান্ড হোল্ড করে মানে কিছুক্ষণ চাপ দেওয়ার পর সিলেট করতে হবে। তারপর আপনি উপরে একটি পিন অপশন দেখতে পাবেন। বেশ, আপনি সেই পিন অপশনে চাপ দিয়ে আপনার পছন্দমত কন্টাক্ট টি কে বা কন্টাক্ট গুলিকে পিন করে নিন এর ফলে নতুন কন্টাক্ট থেকে মেসেজ আসার পরেও পিন করা কন্টাক্ট গুলি আর নিচের দিকে সরে যাবে না।

টিপস ৭।

Whatsapp-এর গ্রূপ এর বৈশিষ্ট্য অনুসারে জানা বা অজানা নাম্বারে থাকা যে কেউ আপনাকে তার গ্রূপে যোগ করতে পারে। এবং বেশিরভাগ সময়ে এটি আপনার অজান্তেই হয়ে থাকে যা অনেক সময় অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। আপনি চাইলে এই অসস্তিবোধ থেকে বিরত হতে এই টিপসটি অনুসরণ করতে পারেন। হোয়াটস অ্যাপ সেটিংসে গিয়ে প্রাইভেসি অপশন সিলেক্ট করুন। এরপর সেখান থেকে group  অপশনে গিয়ে আপনি বেছে নিতে পারেন আপনাকে কে তার গ্রূপে যোগ করতে পারবে। সেখানে যদি আপনি কন্টাক্ট লিস্ট সিলেট করেন তাহলে শুধু আপনি যার কন্টাক্ট এ সেভ আছেন তারাই আপনাকে গ্রূপে যোগ করতে পারবে অন্য কেউ নয়।

টিপস ৮।

হোয়াটস্যাপ মেসেঞ্জার কে যদি আপনি আপনার ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ কম্পিউটারে ব্যবহার করতে চান তা খুবই সহজে করতে পারবেন। আপনি আপনার ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ এ web.whatsapp.com এই ইউআরএল (URL)  টি  সার্চ করুন। সেখানে একটি QR কোড পাবেন। এরপর আপনি আপনার মোবাইলে হোয়াটসঅ্যাপ ওপেন করুন সেখানে উপরে ডানদিকে তিনটি ডট বিশিষ্ট মেনুতে চাপ দিয়ে whatsapp web এ ক্লিক করুন। যার ফলে আপনার ফোনের ক্যামেরা ওপেন হয়ে যাবে এবং সেখানে আপনি আপনার কম্পিউটারের সেই QR কোডটি স্ক্যান করে নিতে  পারবেন। আপনার স্ক্যান হয়ে গেলেই আপনার কম্পিউটারের সেই ব্রাউজারে আপনার হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট খুলে যাবে। এবং আপনি কম্পিউটার থেকে সহজেই মেসেজ ছবি ইত্যাদি আদান-প্রদান করতে পারবেন কেউ আপনাকে হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ পাঠালে তা পড়তেও পারবেন।

টিপস ৯।

আপনি আপনার হোয়াটসঅ্যাপে প্রতিদিন যদি প্রচুর ছবি-ভিডিও রিসিভ করে থাকেন এবং সেগুলি অটো ডাউনলোড হয়ে যায় আর আপনার নেট ডাটা দ্রুত ফুরিয়ে যেতে থাকে আর আপনি নিরুপায় হয়ে তা সহ্য করতে থাকেন তাহলে এখন আর সহ্য নয় আপনার সেটিংসে ছোট্ট একটা রদবদলের মাধ্যমে আপনি আপনার হোয়াটসঅ্যাপে আসা পিকচার ভিডিও ইত্যাদির ডাউনলোড কে অনায়াসে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। সেটিংসে ডাটা এন্ড ষ্টোরেজ ইউসেজ অপশনে গিয়ে মিডিয়া অটো ডাউনলোড সেকশনে আপনি আপনার পছন্দমত মত auto-download অপশন চেঞ্জ করতে পারবেন। এই ক্ষেত্রে আপনি চারটি ক্যাটাগরি দেখতে পাবেন যেমন ফটো, অডিও, ভিডিও এবং ডকুমেন্ট।আপনার ইচ্ছানুযায়ী আপনি এক বা একাধিক ক্যাটাগরি সিলেক্ট করতে পারেন বা কোনটাই সিলেক্ট না করতে পারেন। যে যে ক্যাটাগরি  টিক দিয়ে সেলেক্ট করবেন সেগুলি আপনার হোয়াটস্যাপ মেসেঞ্জারে অটো ডাউনলোড হয়ে যাবে এবং যেগুলি সিলেক্ট করবেন না সেগুলো কে আপনাকে মেসেজ এর উপর ক্লিক করে ডাউনলোড করতে হবে।

টিপস ১০।

এই শেষ টিপস টিতে আমি আপনাকে একটি অত্যন্ত প্রয়োজনীয় সেটিংস এর ব্যাপারে বলব যা আপনি না করে থাকলে হয়তো পরে আপনাকে আফসোস করতে হতে পারে। আমরা জানি, অনেক প্রয়োজনীয় তথ্য আদান-প্রদান আমরা হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট (Whats App) এর মাধ্যমে করে থাকি। যদি আপনার হোয়াটসঅ্যাপ মোবাইল থেকে কখনো ডিলিট হয়ে যায় বা আপনার ফোন হারিয়ে যায় বা চুরি হয়ে যায় বা হয়তো কোন কারনে আপনার ফোন ফরম্যাট করতে হয় তখন আপনার সেই প্রয়োজনীয় তথ্য যা আপনি হোয়াটসঅ্যাপে রিসিভ করেছিলেন তা কিভাবে ফেরত পাবেন। কিছুই না আপনি আপনার হোয়াটসঅ্যাপের সেটিংসে ব্যাকআপ অপশনটি সক্রিয় (enable) করে রাখুন। যার ফলে আপনার হোয়াটসঅ্যাপে আসা সমস্ত তথ্য আপনার গুগল ড্রাইভে ব্যাকআপ হতে থাকবে। ব্যাকআপ সক্রিয় করার জন্য আপনি সেটিংসে একটি চ্যাট অপশন পাবেন। সেখান থেকে চ্যাট ব্যাকআপ এবং তারপরে ব্যাকআপ এখানে আপনি আপনার ইমেইল দিয়ে ব্যাকআপ পেতে পারেন। আর অবশ্যই আপনার ব্যাকআপ এর জন্য ওয়াইফাই অনলি অপশন টি সিলেক্ট করে নেবেন এতে আপনার মোবাইল ডাটা খরচ থেকে বাঁচবে।

আরও পড়ুন :
GOOGLE PAY- অনলাইন পেমেন্ট এর এক সহজ ও সুরক্ষিত সমাধান

No comments:

Post a comment

Bottom Ad [Post Page]